রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০২:৪৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
মির্জা ফখরুলের সঙ্গে গণতন্ত্র মঞ্চ ও ১২ দলের বৈঠক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করলেন মো: আব্দুল ওয়াদুদ এমপি রবিবার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য লন্ডন যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি জলবায়ু পরিবর্তনে স্থানচ্যুতদেরকে জাতিসংঘের ‘অভিবাসী’ সংজ্ঞায় অন্তর্ভুক্তির আহবানঃ পররাষ্ট্রমন্ত্রী এনআইডি জালিয়াত ও সহায়তকারীদের কোনো ছাড় নয় সিইসি বেইলি রোডে অগ্নিকান্ডে হতাহতের ঘটনায় সংসদে ক্ষোভ প্রকাশ; মুজিবুল হক অফশোর ব্যাংকিং আইন বিল সংসদে নবনিযুক্ত প্রতিমন্ত্রীকে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর ফুলেল শুভেচ্ছা শিক্ষার জায়গাটা সবার জন্য উন্মুক্ত রাখতে হবে- শিক্ষামন্ত্রী হালনাগাদ ভোটার তালিকা প্রকাশ

আমাদের দ্বিধা আছে; এখনো আছে-চুন্নু

সিনিয়র রিপোর্টার / ৫৪ Time View
Update : বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০২৩

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে জাতীয় পার্টি আসন বণ্টনের প্রয়োজনীয়তা দেখছে না বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু।তিনি জানান, সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে তার দল এখনো দ্বিধায় আছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সঙ্গে বৈঠকে ক্ষমতাসীন দলের ইতিবাচক মনোভাব দেখতে পেয়েছেন জানিয়ে চুন্নু বলেন, ‘এখনো বলছি, গত পাঁচ বছরে উপনির্বাচন এবং স্থানীয় সরকার নির্বাচনগুলোতে আমাদের অভিজ্ঞতা সুখকর নয়। তাই আমাদের দ্বিধা আছে; এখনো আছে।’

তিনি বলেন, ‘আসন বণ্টনের কোনা কথা আমরা বলিনি। খুব একটা প্রয়োজনও আছে বলে আমরা মনে করি না। জাতীয় পার্টি মনে করে, সারা দেশে ভোটাররা যদি ভোট কেন্দ্রে আসতে পারে এবং ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে, ভোটটা দিতে পারে তাহলে জাতীয় পার্টি এবার বলা যায় না; একানব্বই সালের মতো একটা নীরব ভোটের বিপ্লব হয়ে যেতে পারে। আমরা খুবই আত্মবিশ্বাসী।’

জাপা মহাসচিব বলেন, ‘তাই আমরা চেষ্টা করছি, নির্বাচনটা সুষ্ঠু করার জন্য। ক্ষমতাসীন দলের কাছে এটাই আমাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য ছিল যে, যা যা প্রয়োজন অকুণ্ঠ চিত্তে আপনারা নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করেন। যেন ভোটারদের আস্থা ফিরে আসে ভোটকেন্দ্রে আসার।

‘তারা (আওয়ামী লীগ) আমাদের কথা দিয়েছেন, যে কোনো মূল্যে তারা নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করবেন। যেন ভোটকেন্দ্রে ভোটাররা আসতে পারে। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী যাতে নিরপেক্ষভাবে কাজ করতে পারে। প্রশাসন যাতে নিরপেক্ষভাবে কাজ করতে পারে। কোনো কারণ স্থানীয়ভাবে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী আমাদের কোনো লোককে হেনস্থা না করতে পারে। ভয়-ভীতি যাতে দেখাতে না পারে। এসব ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য তারা আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন,’ জানান তিনি।

চুন্নু বলেন, ‘তাদের আশ্বাসে আমরা মোটামুটিভাবে আশ্বস্ত হয়েছি, বিশ্বাস করেছি। বাকি আগামী দিনগুলোতে কী হবে সেটার অপেক্ষায় আমরা নিশ্চয়ই থাকব এবং নির্বাচনী কর্মকাণ্ড করে যাব।

‘আমরা বিশ্বাস করি এবার, জাতীয় পার্টির সঙ্গে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন হবে এবং এটাও বিশ্বাস করি, যেহেতু জাতীয় পার্টি বড় দল নির্বাচনে আসছে, প্রায় প্রত্যেক আসনে প্রার্থী দিয়েছে, তাই নির্বাচনটা অবশ্যই অংশগ্রহণমূলক এবং শান্তিপূর্ণ নির্বাচন হবে। এই আশা করেই আমরা এখন পর্যন্ত নির্বাচনের মাঠে আছি এবং থাকব,’ যোগ করেন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর