রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১২:৫৬ অপরাহ্ন

বাংলাদেশের বাস্তবতায় নির্বাচন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা- ওবায়দুল কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৯৬ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২৩

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ)প্রতিনিধি দলের সদস্যরা জানতে চেয়েছেন- বাংলাদেশে নির্বাচনের সার্বিক পরিস্থিতি কেমন? আইন শৃঙ্খলা বাহিনী কতটা প্রস্তুত; নির্বাচনে বিরোধীদের অবস্থা কেমন? ’

মঙ্গলবার ২৬ ডিসেম্বর বিকালে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে অবস্থিত ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আয়োজিত সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান। এর আগে বিকাল ৪টার দিকে একই কার্যালয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মন্তব্য কি জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তারা বলার চেয়ে আমাদের কথা শুনতে আগ্রহী ছিলেন। মন্তব্য তারা সেভাবে করতে চাননি। তারা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের কথা শুনেছেন৷ আমরা নির্বাচন করছি, এখানে ২৭টি দল অংশগ্রহণ করছে, ১৮৯৬ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। ইলেকশন নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি, বিএনপি কেন আসলো না, তারাও জানে।’

স্বতন্ত্র প্রার্থী নিয়ে কি জানতে চেয়েছেন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগের আছে, বিএনপির থেকে যারা বেরিয়ে এসেছেন তারাও আছেন, এছাড়াও বাহিরের অনেকে আছে; সব তো আওয়ামী লীগের নয়।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ইলেকশনের টার্ন আউট সন্তোষজনক হবে, মানুষের আগ্রহ আছে। সারা বাংলাদেশেই  স্বতঃস্ফূর্ততা ভোটারদের মধ্যে লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিএনপি একটা বড় দল, সংশয় থাকতেই পারে। পৃথিবীর গণতান্ত্রিক দেশে যে স্টান্ডার্ডে নির্বাচন হয়, সেভাবেই আমাদের দেশেও হবে। কারণ বাংলাদেশের বাস্তবতায় নির্বাচনটা সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা।

নির্বাচনে ভায়োলেন্স নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ভায়োলেন্স বিএনপিই করছে নির্বাচন বানচাল করতে। আমরা শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চাই। নির্বাচনকে নিয়ে বা ঘিরে কোন সহিংসতা আমরা চাই না। একটা ভায়োলেন্স  ফ্রি,পিসফুল ইলেকশন শেখ হাসিনা চান। তিনি সেটা নিজেই বারবার বলছে। কেউ ভায়োলেন্সে যদি জড়ায়, সহিংসতা করে সে ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন যে আইনগত ব্যবস্থার কথা বলছে আমরা সমর্থন করছি। কোন প্রকার নির্বাচন বিরোধী সহিংস কর্মকাণ্ড আমরা সমর্থন দেবো না, প্রশ্রয় দেবো না।

তিনি বলেন, হাস্যকর কিছু বিষয় উঠে এসেছে। বাংলাদেশে খোমিনি স্টাইলে বিপ্লব হবে, এ রকম দু:স্বপ্ন দেখছে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে উদ্দেশ্য করে সেতুমন্ত্রী বলেন, রিমোট কন্ট্রোল লিডার বাংলাদেশে সম্ভব না। সৎ সাহস থাকলে রাজপথে আসুন। মোকাবেলা করেন, হয় রাজপথে না হয় জেলে যেতে হবে। দেশে আসুন, নেতা পলাতক ফিউজিটি থেকে নেতৃত্ব দেবেন? এটা একটা ফরমাইশি আন্দোলন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাচন ইশতেহার কমিটির সদস্য ড.সেলিম মাহমুদ, আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ আব্দুল আউয়াল শামীম, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান, অর্থ ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক, ওয়াসিকা আয়স্না খান, কার্যনির্বাহী সদস্য মোহাম্মদ এ আরাফাত, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পনিরুজ্জামান তরুণ প্রমুখ।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর