শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:৫৪ অপরাহ্ন

‘নির্বাচনকে ঘিরে জঙ্গি হামলার ঝুঁকি নেই’

সিনিয়র রিপোর্টার / ১১০ Time View
Update : বুধবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২৪

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন কেন্দ্রে কোনো ধরনের জঙ্গি হামলার ঝুঁকি নেই বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট প্রধান মো. আসাদুজ্জামান।

বুধবার ৩ জানুয়ারি দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) নসরুল হামিদ মিলনায়তনে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (ক্র্যাব) সাংবাদিকদের করা প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন তিনি। সেখানে ফ্রি মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল ক্যাম্প উদ্বোধন করেন সিটিটিসিপ্রধান মো. আসাদুজ্জামান।

তিনি বলেন, আমাদের জঙ্গিবাদবিরোধী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দুদিন আগেও আমরা একটি সংগঠনের মূল ব্যক্তিসহ অপারেশনাল কমান্ডারকে গ্রেপ্তার করেছি। যারা নতুন করে সংঘটিত হওয়ার চেষ্টা করছিল। এই মুহূর্তে জঙ্গিদের মাথাচাড়া বা তাদের তৎপরতা কিংবা কোনো হামলার কোনো ঝুঁকি নেই, জঙ্গিদের সেই সক্ষমতাও নেই। আমরা প্রস্তুত আছি, কাজ করছি যাতে করে এ ধরনের কোনো ধরনের অপরাধপ্রবণতা পরিলক্ষিত হলেই আমরা আমরা পূর্বেই ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারি।

আসাদুজামান বলেন, আগামী ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এই নির্বাচন যাতে অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয় সে লক্ষ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কাজ করছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকা যেসব সংসদীয় আসন রয়েছে, কোথাও কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো ধরনের আইনশৃঙ্খলাজনিত সমস্যার সৃষ্টি হয়নি। প্রার্থীরা নির্বিঘ্নে ও নিরাপদে তাদের প্রচার-প্রচারণা চালাচ্ছেন। উৎসবমুখর পরিবেশে বিরাজ করছে। আমরা আশাবাদী কিছু ঘটবে না এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সেরকম প্রস্তুতিও রয়েছে। যেকোনো ধরনের অরাজকতা নাশকতা ঠেকাতে ও প্রতিরোধে সক্ষমতা রয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সিটিটিসিপ্রধান বলেন, ভোট দেওয়া জনগণের সাংবিধানিক অধিকার। সেই অধিকার প্রয়োগে যাতে কেউ বাধা সৃষ্টি করতে না পারে, জনগণ যাতে নিরাপদে নির্ভয়ে ভোট কেন্দ্রে আসতে পারে সেজন্য ডিএমপির সকল ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।

নির্বাচনের ঠিক পরে কিংবা আগে রাজনৈতিক সহিংসতা হওয়ার একটা শঙ্কা জনমনে কাজ করছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সিটিটিসিপ্রধান বলেন, এই ধরনের নাশকতা বা অরাজকতা যারা সৃষ্টি করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এগুলো প্রতিহত করার জন্য সক্ষমতা ও প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে এবং ভিত্তিতে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা আমার গ্রহণ করছি। ইতোপূর্বে যারা নাশকতা সঙ্গে জড়িত সেই মাস্টারমাইন্ডসহ এর পেছনে যারা জড়িত ছিল সকলকে আইনের আওতায় আনা হয়েছে এবং আনা হচ্ছে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এবার ট্রেনে নাশকতার ঘটনা বেশি দেখা যাচ্ছে। এই বিষয়গুলোকে আপনারা আলাদাভাবে দেখছেন কি-না জানতে চাইলে ডিএমপির এ অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, রেলে নাশকতা নিয়েও আমরা কাজ করছি। বিভিন্ন স্থানে রেলে নাশকতা ঘটনা আমরা পর্যবেক্ষণ করছি। রেলে বড় দুটি নাশকতার ঘটনার একটি ইতোমধ্যে আমরা মাস্টারমাইন্ডসহ যারা রেললাইন কেটেছিল তাদের গ্রেপ্তার করেছি।

তিনি আরও বলেন, তেজগাঁওয়ে রেলে আগুনে নারী ও শিশুসহ চারজনের মৃত্যুর ঘটনায় আমরা কাজ করছি। আশা করছি এটাও আমরা উদ্‌ঘাটন করতে পারব। রেলে যাতে আর কোনো নাশকতার ঘটনা না ঘটে সেজন্য পুলিশ কাজ করছে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীগুলো কাজ করছে। রেলকে নিরাপদ রাখার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বিভিন্ন ধরনের প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সীতাকুণ্ডসহ বিভিন্ন স্থানে রেল দুর্ঘটনার নেপথ্যে কোনো ধরনের নাশকতার উদ্দেশ্য আছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। এটা যদি নাশকতা হয় অবশ্যই যারা জড়িত তাদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

তিনি বলেন, কোনো নাশকতাকারীকে আমরা ছাড় দেব না, নাশকতা করে কেউ ছাড় পাবে না। বাংলাদেশ পুলিশের অনেক সক্ষমতা হয়েছে। আগামী দিনেও যেকোনো ধরনের নাশকতাকে আমরা নস্যাৎ করে দিতে পারব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর