সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৮:৪৯ পূর্বাহ্ন

চাঁদাবাজি সমাজে একটি সংস্কৃতি হয়ে দাঁড়িয়েছে ; আনিসুল ইসলাম মাহমুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক / ১০২ Time View
Update : রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
ফাইল ছবি

চাঁদাবাজি সমাজে একটি সংস্কৃতি হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ও দলটির সংসদ সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। সংসদ সদস্যদের উদে্দেশে তিনি বলেন, ৩৫০ জন এমপি যদি নিজেরা প্রতিজ্ঞা করেন চাঁদাবাজদের মদদ দেবে না, প্রতিহত করবে তাহলে চাঁদাবাজি হয়ত নির্মুল করা যাবে না তবে কমানো যাবে।

রবিবার জাতীয় সংসদে অনির্ধারিত আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

একটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ তুলে ধরে আনিসুল ইসলাম বলেন, আজকে চাঁদা একটা কালাচারে পরিণত হয়েছে। রাস্তা দিয়ে যখন পরিবহনের ট্রাকগুলো আসে সেখানে চাঁদা দিতে হয়। সেই চাঁদা যোগ হয় দ্রব্যমূল্যের সাথে। আপনি একটি বাড়ি করবেন সেখানে বালি কে দিবে, ইট কে সাপ্লাই দিবে, রড কে সাপ্লাই দিবে এগুলোর জন্য দিতে হয় চাঁদা। হয় চাঁদা দিতে হবে নয়ত তাদেরকে সেই সাপ্লাইয়ের কাজ দিতে হবে। আজকে চাঁদাটা ভয়ঙ্কর ব্যাধির আকার ধারন করেছে।

আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, হকারদেরও চাঁদা দিতে হবে। যে হকারগুলো খুবই গরীব মানুষ, কোনভাবে বিক্রি করে তারা সংসার চালায় এই গরীব লোকদের থেকে পর্যন্ত চাঁদা নিচ্ছে। চাঁদা নেওয়া হচ্ছে রিকশার থেকে। রিকশার যে স্ট্যান্ড সেখানে তাদের চাঁদা দিতে হচ্ছে। চাঁদা নেওয়া হচ্ছে সিএনজির যে মালিক, ড্রাইভার তাদের চাঁদা দিতে হচ্ছে। সমাজের প্রত্যেক জায়গায়, বিশ্ববিদ্যালয়েও আমরা অনেক কিছু দেখছি। এই চাঁদার যে কালচার ডেভলপ করছে এটার বিরুদ্ধে যদি আমরা একটা মুভমেন্ট না করি তাহলে আমাদের দেশের জন্য দুর্দিন সামনে আছে বলে আমি মনে করি।

এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে সামনে দুর্দিন আসবে এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, সব সংসদ সদস্যকে ঐকবদ্ধ হয়ে চাদাবাজদের মদদ না দেওয়া এবং চাদাবজদের সম্পর্কে জানলে প্রতিহত করার প্রতিজ্ঞা নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলেন, আমাদের সংসদে এখন তিনশ’ সদস্য আছেন। অচিরেই ৩৫০ জনে সেটি উন্নীত হবে। আমার একটি পরামর্শ আছে যে আমরা যেই ৩৫০ জন আছি আমরা যদি নিজেদের কাছে প্রতিজ্ঞা করি আমরা কোন চাঁদাবাজকে কোন মদদ দেবো না, সাহায্য করব না বরং তারা যদি এসব কাজ করে তাহলে তাদের প্রতিহত করব। তাহলে আমি মনে করি হয়ত বাংলাদেশ থেকে নির্মুল করা যাবে না, কিন্তু অনেকখানি আমরা কমাতে পারব বলে মনে করি। আমি এই সংসদে দাঁড়িয়ে আমার যে সহকর্মীরা আছেন সেই সংসদ সদস্যদের কাছে আমার আবেদন চলুন আমরা এই একটা কাজে ঐক্যবদ্ধ হই। এখানে কোন পয়সা খরচ হবে না। কোন কিছু লাগবে না। কেবল আমরা প্রতিজ্ঞা করব এদেরকে মদদ দেবো না এবং যেখানে জানব সেটা প্রতিহত করব। এই কাজটি করলে আমরা মনে করি বাংলাদেশ অনেকখানি বেঁচে যায়। এই যে উন্নত দেশের স্বপ্ন আমরা দেখি সেই স্বপ্ন হয়ত সেই উন্নত বাংলাদেশ গড়তে পারব।

 


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর