শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০১:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
কায়েমি স্বার্থে যারা অপরাজনীতি করে তাদের মোকাবেলা করতে হবে- নাছিম লেখাপড়ার পাশাপাশি খেলাধুলা শিশুদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ: প্রধানমন্ত্রী স্বচ্ছতা ও সর্বোচ্চ পেশাদারিত্বের সাথে সরকারি অনুদানের চলচ্চিত্র বাছাই হবে : তথ্য প্রতিমন্ত্রী শিশুর শারীরিক, মানসিক, সামাজিক ও নৈতিক বিকাশে খেলাধুলার বিকল্প নেই: রাষ্ট্রপতি সার্বিক অগ্রগতির পথে প্রধান অন্তরায় বিএনপি- কাদের রোজা-ঈদের ছুটি শেষে রোববার খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সারাদেশে তিন দিনের হিট অ্যালার্ট জাতীয় পতাকার নকশাকার শিব নারায়ণ দাস মারা গেছেন ইরানের পারমাণবিক স্থাপনার কোনো ক্ষতি হয়নি : আইএইএ ঈদের পরও স্বস্তি ফেরেনি নিত্যপণ্যের বাজারে

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালন করলো যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৭৫ Time View
Update : রবিবার, ১৭ মার্চ, ২০২৪

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৪ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস-২০২৪ যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করেছে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়।

রবিবার (১৭ মার্চ ২০২৪) সকালে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অবস্থিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে জাতির পিতার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন
করা হয়।

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের শহিদ শেখ কামাল অডিটোরিয়ামে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্ম নিয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভার শেষে জাতির পিতার রুহের মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়। সভায় উপস্থিত অতিথিবৃন্দ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সংগ্রামমুখর জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা করেন।

আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তৃতায় যুব ও ক্রীড়া সচিব বলেন,  বঙ্গবন্ধু আমাদের একটি স্বাধীন দেশ দিয়ে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আমরা যা কিছুই করি না কেনো, সেটি যথেষ্ট নয়। আমাদেরকে বঙ্গবন্ধুর কর্মময় জীবন থেকে শিক্ষা নিতে হবে।  বঙ্গবন্ধুকে শুধু মুখে নয়, হৃদয়ে ধারণ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরলস কাজ করে চলেছেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারন ও লালন এর মাধ্যমেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ সম্ভব হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ২০৪১ সালের মধ্যে যে উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছেন, সেটির সফল বাস্তবায়ন সম্ভবপর হবে।

যুব ও ক্রীড়া সচিব আরো বলেন, স্বাধীনতার পরে অন্যান্য সকল সেক্টরের ন্যায় বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াঙ্গনকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ গ্রহণ করেন। মাত্র সাড়ে তিনবছরে তিনি ২২ টিরও বেশি ক্রীড়া ফেডারেশনসহ জাতীয় ক্রীড়া নিয়ন্ত্রক সংস্থা যা আজকের এনএসসি প্রতিষ্ঠা করেন। ক্রীড়াবিদদের সাহায্য করতে তিনি বঙ্গবন্ধু ক্রীড়াসেবী কল্যাণ ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেন। বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে দেশের ক্রীড়াঙ্গন আরো অনেক দূর এগিয়ে যেতো।

আলোচনা সভায় অন্যান্যদের সঙ্গে আরো বক্তব্য রাখেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব ও মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (ক্রীড়া) মোঃ মোস্তফা কামাল মজুমদার ও যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. গাজী মোঃ সাইফুজ্জামান।

এ সময়ে যুব ও ক্রীড়া সচিব ড. মহিউদ্দীন আহমেদসহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ দপ্তর সংস্থার প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর