বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৬:২৮ পূর্বাহ্ন

কিশোর গ্যাংয়ের হামলা, নারীসহ আহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক / ২৬ Time View
Update : শনিবার, ২৫ মে, ২০২৪

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের বৈদ্যেরবাজার ট্রলার ঘাট এলাকায় সামাজিক সংগঠন বিডি ক্লিনের নারী সদস্যদের ইভটিজিং করার প্রতিবাদ করায় কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় নারীসহ দুইজন আহত হয়েছেন।
শনিবার (২৫ মে) এ ঘটনায় গ্রেপ্তার দুইজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে শুক্রবার (২৪ মে) সন্ধ্যায় বৈদ্যেরবাজার ট্রলার ঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আহতদের সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে ওই রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আহতরা হলেন- বিডি ক্লিনের সদস্য হাসিবুল ইসলাম (২০) ও নারী সদস্য আফরিন ইরা (২৩)।

এ ঘটনায় সোনারগাঁ বিডি ক্লিনের সমন্বয়ক কামরুজ্জামান রানা বাদী হয়ে মামলা করেন। মামলা করার পর রাতেই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্য সৌরভ নামে একজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

জানা যায়, সোনারগাঁয়ের বিভিন্ন এলাকায় প্রতি শুক্রবার সামাজিক সংগঠন বিডি ক্লিনের সদস্যরা ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করে থাকেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার বিকেল ৩টার দিকে ট্রলারযোগে বারদী ইউনিয়নের নুনেনটেক গিয়ে ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার করতে যান। পরিষ্কার অভিযান শেষে ফিরে আসার সময় সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে বৈদ্যেরবাজার ট্রলার ঘাটে নেমে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন।

ওই এলাকার কয়েকজন যুবক আল আমিনের নেতৃত্বে নারী সদস্যদের ইভটিজিং ও বিভিন্নভাবে উত্ত্যক্ত করে। এ সময় বিডি ক্লিনের পুরুষ সদস্যরা প্রতিবাদ করেন। এ নিয়ে তাদের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। এক পর্যায়ে ওই এলাকার কিশোর গ্যাংয়ের লিডার রাহুলের নেতৃত্বে ১৫-২০জন এসে তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা নারী সদস্য আফরিন ইরাকে পিটিয়ে আহত ও শ্লীলতাহানি করে। আফরিন ইরাকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে হাসিবুল ইসলাম নামে এক সদস্যকে পিটিয়ে মারাত্মভাবে আহত করে। আহতদের সোনারগাঁ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

কিশোরগ্যাংয়ের হামলার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

সোনারগাঁ বিডি ক্লিনের সমন্বয়ক কামরুজ্জামান রানা জানান, ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করার কারণে অতর্কিত হামলা করে কিশোরগ্যাং সদস্যরা। এতে তাদের দুই সদস্য আহত হয়েছেন। এমন ঘটনা ঘটলে স্বেচ্ছায় কেউ সামাজিক সংগঠন করতে চাইবে না। এ ঘটনার বিচার দাবি করেন তিনি।

নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খ- অঞ্চল) শেখ বিল্লাল হোসেন বলেন, ইভটিজিং ও হামলার ঘটনায় মামলা গ্রহণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সোনালী বার্তা/এমএইচ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর