বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১২:৪৭ পূর্বাহ্ন

শ্রমিক ফেডারেশনের ওসমান আলীর অপসারণ দাবি

Reporter Name / ৩৪ Time View
Update : সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলীর বিরুদ্ধে কয়েক কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে ওসমান আলীকে অপসারণ ও তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে ঢাকার শ্রমিক সংগঠনগুলো।

গতকাল রোববার বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাজাহান খান বরাবর এক আবেদনে এ দাবি জানানো হয়। আবেদনে শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলীর বিরুদ্ধে অনৈতিকভাবে অর্থ আত্মসাৎ ও সংগঠনবিরোধী কর্মকাণ্ড তুলে ধরা হয়।

আবেদনটিতে স্বাক্ষর করেছেন ঢাকা জেলা বাস-মিনিবাস সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন, ঢাকা জেলা বাস মিনিবাস ও কোচ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন, ঢাকা জেলা সড়ক পরিবহন যানবাহন শ্রমিক ইউনিয়ন এবং মিরপুর সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকরা। এ ছাড়া ঢাকা জেলা যানবাহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতিও আবেদনে স্বাক্ষর করেছেন।

আবেদনে বলা হয়, শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব হলো শ্রমিকদের মধ্যে ঐক্য বজায় রাখা ও ট্রেড ইউনিয়নের বিধিমালা শ্রমিক সংগঠনকে অবহিত করা। কিন্তু ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী বিভিন্ন সংগঠনের নেতাদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করেছেন। সেই বিভেদকে পুঁজি করে ঢাকা মহানগরীর শ্রমিক ইউনিয়নের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করেন। এ ছাড়া ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সঙ্গে যাতে সুসম্পর্ক না থাকে এ ব্যাপারে সবসময় নানা প্ররোচনা ও অসৎ পরামর্শ দিতেন, যা সংগঠনের গঠনতন্ত্র পরিপন্থি।

আবেদনে আরও বলা হয়, মহাখালী বাস টার্মিনালের মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির গত ১১ মাস বিভেদের মূলে ছিলেন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী। যা এরইমধ্যে সবার সামনে প্রমাণ হয়েছে। তাই জরুরি ভিত্তিতে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদককে অপসারণ করে সংশ্লিষ্ট শ্রমিক সংগঠনের আত্মসাৎ করা টাকা ফেরত ও তিনি যাতে শ্রমিক ইউনিয়নের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করতে না পারে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান শ্রমিক সংগঠনগুলোর নেতারা।

এ ছাড়া আবেদন আরও বলা হয়, যতক্ষণ পর্যন্ত ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদককে অপসারণ করা না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত তারা ফেডারেশনের কোনো কর্মসূচিতে অংশ নেবেন না এবং বাস টার্মিনাল থেকে ফেডারেশনে দৈনিক টাকা জমা দেবেন না।

তবে এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে ওসমান আলীকে ফোন করা হলে তিনি রিসিভ করেননি।

 

সোনালী বার্তা/এমএইচ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর