বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন

পায়রা তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের ১টি ইউনিট বন্ধ থাকায় লোডশেডিং বেড়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক / ৩২ Time View
Update : শনিবার, ২৯ জুন, ২০২৪

তীব্র গরমে বেড়েছে লোডশেডিংয়ের পরিমাণ, ভোগান্তিতে জনজীবন। লোডশেডিংয়ের কারণ নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের জন্য পটুয়াখালীর পায়রা তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের একটি ইউনিটের উৎপাদন বন্ধ রয়েছে। গত ২৪ জুন বিকেল থেকে ১ম ইউনিটটি বন্ধ করা হয়।  

সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে এই ইউনিটটি আবারও চালু করা হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎকেন্দ্র সংশ্লিষ্টরা। এদিকে বিদ্যুৎকেন্দ্রের ওই ইউনিট বন্ধ হওয়ায় দক্ষিণাঞ্চলের লোডশেডিংয়ের পরিমাণ বেড়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন বাসিন্দারা।পটুয়াখালীর পায়রা তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র ২০২০ সাল থেকে জাতীয় গ্রিডে ৬৬০ মেগাওয়াটের একটি ইউনিট থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হয়। এই কেন্দ্রের দুটি ইউনিট থেকে মোট ১৩২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করে আসছে।

তবে গত ২৪ জুন বিকেলে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্লান্টের ১ম ইউনিট বন্ধ করা হয়। ফলে বর্তমানে ৬৬০ মেগাওয়াটের একটি ইউনিট জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহ করছে।

পায়রা তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্রের প্লান্ট ম্যানেজার শাহ আবদুল মাওলা বলেন, নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণের কাজটি সম্পন্ন করে দ্রুত সময়ের মধ্যেই বন্ধ ইউনিটটিও চালু করা হবে। আশা করছি আগামী ২ জুলাই পুরো দমে বন্ধ ইউনিটটি চালু করা সম্ভব হবে।

এদিকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের এই ছন্দ পতনের ফলে পটুয়াখালীসহ দক্ষিণ অঞ্চলের লোডশেডিং বেড়েছে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ মানুষসহ বিভিন্ন শিল্পপ্রতিষ্ঠান। আর সব থেকে বেশি ভোগান্তিতে রয়েছে কুয়াকাটা পর্যটন এলাকার প্রতিষ্ঠানগুলো।

এর আগে কয়লা সংকটে ২০২৩ সালের ৫ জুন দেশের বৃহৎ এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটি পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। এর ঠিক ২০ দিন পর আবারও উৎপাদন শুরু হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এক ক্লিকে বিভাগের খবর